Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

আম্রপালি চাষের ধুম

চট্টগ্রামের তিন পার্বত্য জেলায় স্থানীয় আমচাষিরা উন্নত জাতের আম্রপালি চাষ করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন। বান্দরবান, লামা, খাগড়াছড়ি, রামগড়, কাপ্তাই, চন্দ্রঘোনা এলাকায় বেসরকারি উদ্যোগে আম্রপালি আমের চাষ করা হচ্ছে।

 

সংশ্লিষ্টদের মতে, এ উন্নত জাতের আম উৎপাদনের জন্য চট্টগ্রামের পার্বত্য অঞ্চলের মাটি এবং আবহাওয়া খুবই উপযোগী। বর্তমানে প্রতি মৌসুমে ১৫ থেকে ২০ হাজার মেট্রিক টন আম্রপালি উৎপন্ন হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের অভিমত, এই অঞ্চলে আরো ব্যাপক ভিত্তিতে আম্রপালি চাষ করলে দেশে আমের সংকট দূর করে বিদেশেও আম রফতানি করা সম্ভব হবে।  

 

আমচাষিদের কাছ থেকে জানা গেছে, সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে চারা রোপণের তিন বছরের মধ্যে গাছে ফলন আসা শুরু করে। মার্চ-এপ্রিল মাসের দিকে আম্রপালি আমের মুকুল আসে, ফলন হয় জুন-জুলাই মাসের দিকে। প্রথম পর্যায়ে গাছ

 

ছোট থাকায় গড়ে গাছপ্রতি পাঁচ থেকে ছয় কেজি আম উৎপন্ন হয়। পর্যায়ক্রমে গাছের বর্ধনের পর গাছপ্রতি ৫০ থেকে ৬০ কেজি আম উৎপন্ন হয়। আম্রপালি আম সম্পর্কে  বান্দরবান জেলা কৃষি কর্মকর্তা সাবজাল উদ্দীন আজকের পত্রিকাকে  জানান, এটা ভারতীয় জাতের আম। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট বারী আম-৩ জাত হিসেবে আম্রপালি অবমুক্ত করে। প্রথম পর্যায়ে এই আমের জাতের চারা সংকটের কারণে বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর কৃষি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে প্রকল্পের মাধ্যমে ভারত থেকে ১৯৯৬ সালের দিকে সর্বপ্রথম এই আম্রপালি আমের চারা আমদানি করে এবং কৃষক পর্যায়ে বিনামূল্যে বিতরণ করে।

 

পার্বত্য অঞ্চলে আমচাষ সম্পর্কে নিজামপুর এগ্রো প্রোডাক্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ কামাল উদ্দীন বলেন, বর্তমানে চট্টগ্রামের পার্বত্য অঞ্চলে ছোট-বড় সব মিলিয়ে প্রায় ৭০০ আমের বাগান রয়েছে। এসব বাগানে প্রায় ১০ হাজার লোক কর্মরত। ১৯৯৭ সাল থেকে পার্বত্য অঞ্চলে উৎপাদিত আমের মধ্যে রয়েছে আম্রপালি, মল্লিকা, রাংগুয়াই, থাইকাঁচামিঠা, থাইনামডাকমাই, ফনিয়া, থাইব্যানানা জাতের আম।

 

চট্টগ্রামের পার্বত্য অঞ্চল লামার কেয়াজুপাড়ায় বিশাল বাগানে উন্নতজাতের আম উৎপন্ন করে খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান মেরিডিয়ান গ্রুপ ইতোমধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগাতে সক্ষম হয়েছে। মেরিডিয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান কোহিনুর কামাল বলেন, অনেকটা শখের বশে ২০০৪ সালের দিকে পার্বত্য অঞ্চল লামায় উন্নতজাতের আমচাষের উদ্যোগ গ্রহণ করি।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
বাজারে গত মাসের মাঝামাঝি সময় থেকেই আম আম রব। ক্রেতা যে আমেই হাত দিক না কেন দোকানি বলবে হিমসাগর নয়তো রাজশাহীর আম। ক্রেতা সতর্ক না বলে রঙে রূপে একই হওয়ায় দিব্যি গুটি আম চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে হিমসাগরের নামে। অনেকসময় খুচরা বিক্রেতা নিজেই জানে না তিনি কোন আম বিক্রি করছেন। ...
মধূ মাসে বাজারে উঠেছে পাকা আম। জেলা শহর থেকে ৬০ কি.মি দুরের প্রত্যন্ত ভোলাহাট উপজেলার স্থানীয় বাজারে ফরমালিন মুক্ত গাছপাকা আম এখন চড়া দামে বিক্রয় হচ্ছে। মালদহ সীমান্তবর্তী বিশাল আমবাগান ঘেরা এই উপজেলায় বেশ কিছু জায়গা ঘুরে বাজারগুলোতে শুধু গাছপাকা আম পেড়ে বিক্রয় করতে দেখা ...
আমের মৌসুম বাড়ছে আরও এক মাস  কোনো রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার না করে আম পাকা প্রায় এক মাস বিলম্বিত করার প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন এক উদ্ভিদবিজ্ঞানী আম পাকা শুরু হলে আর ধরে রাখা যায় না। তখন বাজারে আমের সরবরাহ বেড়ে যায়। যেকোনো দামেই বেচে দিতে হয়। তাতে কোনো কোনো বছর চাষির উৎপাদন ...
সারা দেশে যখন ‘ফরমালিন’ বিষযুক্ত আমসহ সব ধরনের ফল নিয়ে মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে, তখন বরগুনা জেলার অনেক সচেতন মানুষ বিষমুক্ত ফল খাওয়ার আশায় ভিড় জমাচ্ছেন মজিদ বিশ্বাসের আমের বাগানে। জেলার আমতলী উপজেলার আঠারগাছিয়া ইউনিয়নে শাখারিয়া-গোলবুনিয়া গ্রামে মজিদ বিশ্বাসের ২ একরের ...
এখন বৈশাখ মাস গাছে গাছে ভরা আছে মধু ফল আমে। কিন্তু মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে একটি আম গাছে সাধারণ নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটিয়ে ডালছাড়া গাছের মধ্যখানে ধরেছে কয়েকশত আম। আর ব্যতিক্রমী ভাবে ধরা এ আম দেখেতে শিশুসহ অসংখ্য লোকের ভির হচ্ছে সেখানে। এ ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীমঙ্গল সদর ইউনিয়নের ...
ইসলামপুরের গাইবান্ধা ইউনিয়নের আগুনেরচরে একটি আম গাছের গোড়া থেকে গজিয়ে উঠেছে হাতসদৃশ মসজাতীয় উদ্ভিদ বা ছত্রাক। ওই ছত্রাককে অলৌকিক হাতের উত্থান এবং ওই হাত ভেজানো পানি খেলে যেকোন রোগ ভাল হয় বলে অপপ্রচার করছে স্থানীয় ভ- চক্র। আর ওই ভ-ামির ফাঁদে পা দিয়ে প্রতিদিন প্রতারিত হচ্ছেন ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২