Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

খুলনার আমের চারা জার্মান-জাপানে যাবে

খুলনার ফুলতলা উপজেলার নার্সারিগুলোতে সাজ সাজ রব। এখানে কাজ করছে হাজার হাজার শ্রমিক। দেড় শতাধিক নার্সারি ব্যস্ত আমের চারা নিয়ে। এবার জার্মান-জাপানে খুলনার আমের চারার চাহিদা বেশি। ২০ কোটি টাকা মূল্যের চারা রফতানি হবে দেশগুলোতে। ফুলতলা উপজেলা জুড়ে নার্সারি। নার্সারিতে ফল, ফুল, বনজ ও ঔষধী গাছ ভরপুর। বর্ষা মওসুমে সবচেয়ে বেশি চাহিদা ফলদ জাতীয় বৃক্ষের। আম-জাম, লিচু, জামরুল, সফেদা, কামরাঙা, আমড়া, পেয়ারা ইত্যাদি চারা পরিচর্যা হচ্ছে নার্সারিগুলোতে।
স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, উল্লেখিত দু’টি দেশে আম্রপলি, আম্রমল্লিকা, চোষা, হিমসাগর, হাইব্রিড-১০, সিন্ধু, বারী-৪, ব্যানানা, ক্যান, পালমার্ক, সূর্য্যডিম, নেংড়া, গোপালভোগ ও গোবিন্দভোগ জাতের চারার চাহিদা বেশি। স্থানীয় বাজারের চেয়ে দিগুণ মূল্যে এসব জাতের চারা বিদেশে বিক্রি হবে। ডি খান নার্সারি, একতা, ফাতেমা, শাপলা, সাথী, বনরাজ, হাইব্রিড, আদর্শ, রোকেয়া, খাদিজা, সরদার, সবুজ, গ্রীন নার্সারি চারা উৎপাদনের ক্ষেত্রে খ্যাতি অর্জন করেছে। এর মধ্যে দু-একটি জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কারও পেয়েছে।
হাউব্রিড নার্সারির মালিক সরদার আবু সাঈদ জানান, ৩০টি প্লটের ৬০ বিঘা জমিতে নানা জাতের চারা উৎপাদন হয়েছে। জ্যৈষ্ঠ থেকে অগ্রহায়ণ মাস পর্যন্ত নার্সারিগুলোতে চারা বিকিকিনির মওসুম। গেল বছর তাদের এ প্রতিষ্ঠান কোটি টাকার বেশি চারা বিক্রি করে। এ বছরও বিভিন্ন এজেন্ট ও এনজিও’র মাধ্যমে দুই লাখ চারা জার্মানী ও জাপানে বিক্রির আশা করছি। এ অঞ্চলকে ফুলে ফলে সমৃদ্ধ করতে বিদেশ থেকেও নানা জাতের ফুল ও উন্নত জাতের ফলদ গাছের নমুনাও তারা এনেছেন।
সৌখিন নার্সারির মালিক এস এম মোস্তাক জানান, ২৫ বছর আগে ২৩৫ টাকা পুঁজি নিয়ে তিনি এ ব্যবসায় নেমেছেন। তখন ৮০ শতক জমির প্রতি বছরের ভাড়া ছিল মাত্র ৬০ টাকা। তা বেড়ে এখন ৪০ হাজার টাকা হয়েছে। গেল বছর বিভিন্ন জাতের ৭ লাখ টাকা মূল্যের চারা বিক্রি করেছেন। এ মওসুমে ল্যাংড়া, ফজলী, রূপালী ও হিমসাগর জাতের আম বিদেশে রফতানি করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।  ডি খান নার্সারির মালিক খবিরুল ইসলাম খান জানান, গত ৫ এপ্রিলের কাল বৈশাখী ও শিলা বৃষ্টিতে নার্সারির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন জাতের চারা ও ফল নষ্ট হয়েছে। গেল বছর এ প্রতিষ্ঠান ৬ লাখ টাকা মূল্যে চারা বিক্রি করে। এবার মওসুমের আগেই প্রায় প্রতিদিনই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। ফলে এবার চারার চাহিদা বাড়বে। এবার ৮ লাখ টাকা মূল্যের চারা বিক্রি করতে পারবেন বলে তিনি আশাবাদী।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
মেহেরপুরে এবার আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত কয়েকদিনের কালবৈশাখী ঝড়ে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্থ হলেও চলতি বছরও আম চাষিরা লাভের আশা করছেন। এদিকে গেল বছর স্বল্প পরিসরে সুস্বাদু হিমসাগর আম ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে রপ্তানি হলেও এ বছর ব্যাপক হারে রপ্তানি করার প্রস্তুতি নিয়েছে বাগান মালিকও আম ...
ফলের রাজা আম। আর আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জ। দেশের সর্ববৃহত্তর অর্থনৈতিক ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যলয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা। এ জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল আম। বর্তমানে জেলা সবখানে চলছে বাগান পরিচর্যা ও বেচা-কেনা। বর্তমানে জেলার ২৪ হাজার ৪৭০ হেক্টর আম বাগানে ৯০ ভাগ মুকুল এসেছে। ...
আমের মৌসুম বাড়ছে আরও এক মাস  কোনো রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার না করে আম পাকা প্রায় এক মাস বিলম্বিত করার প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন এক উদ্ভিদবিজ্ঞানী আম পাকা শুরু হলে আর ধরে রাখা যায় না। তখন বাজারে আমের সরবরাহ বেড়ে যায়। যেকোনো দামেই বেচে দিতে হয়। তাতে কোনো কোনো বছর চাষির উৎপাদন ...
সারা দেশে যখন ‘ফরমালিন’ বিষযুক্ত আমসহ সব ধরনের ফল নিয়ে মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে, তখন বরগুনা জেলার অনেক সচেতন মানুষ বিষমুক্ত ফল খাওয়ার আশায় ভিড় জমাচ্ছেন মজিদ বিশ্বাসের আমের বাগানে। জেলার আমতলী উপজেলার আঠারগাছিয়া ইউনিয়নে শাখারিয়া-গোলবুনিয়া গ্রামে মজিদ বিশ্বাসের ২ একরের ...
দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে এবার আম সাম্রাজ্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা রফতানি পণ্যের তালিকায় উঠে আসার এক মাসের মধ্যেই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের আম ব্যবসায়ীরা খুবই আগ্রহী হয়ে উঠেছে এখানকার আম তাদের দেশে নিয়ে যাবার ব্যাপারে। যদিও ইতোপূর্বে এ বছর চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে দুই হাজার টন আম ...
ইসলামপুরের গাইবান্ধা ইউনিয়নের আগুনেরচরে একটি আম গাছের গোড়া থেকে গজিয়ে উঠেছে হাতসদৃশ মসজাতীয় উদ্ভিদ বা ছত্রাক। ওই ছত্রাককে অলৌকিক হাতের উত্থান এবং ওই হাত ভেজানো পানি খেলে যেকোন রোগ ভাল হয় বলে অপপ্রচার করছে স্থানীয় ভ- চক্র। আর ওই ভ-ামির ফাঁদে পা দিয়ে প্রতিদিন প্রতারিত হচ্ছেন ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২