Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

আমের জোড় কলম করবেন যেভাবে

রাচীনকাল থেকেই বাংলাদেশে বীজ থেকে আমের বংশ বিস্তার হয়ে আসছে। এ পদ্বতিতে বংশ বিস্তারের সুবিধা হলো খরচ কম, দক্ষতার প্রয়োজন হয় না এবং গাছগুলো বড় ও সুদৃঢ় হয়। কিন্তু বীজ থেকে উপাদন করা গাছ পুরোপুরি বংশ বৈশিষ্ট্য বজায় থাকে না। অর্থাৎ একটি ভালো আমের বীজ থেকে আর একটি আমের গাছ হলে তা সেটি থেকে খারাপ বা অধিক ভালো হতে পারে। এক্ষেত্রে একটি গাছ থেকে কলম করলে তার সম্পূর্ণ গুণাবলি বজায় থাকে। বিভিন্ন পদ্বতিতে আম গাছের কলম করা হয়। যে চারাটিতে কলম করা হয় তাকে বলে “রুট স্টক বা মূলাধার”। আর যে ভালো জাতের গাছের ডাল জোড়া দেওয়া হয় তাকে বলে সায়ন বা মূল ডাল। কলম করার এক বছর আগে আটি মাটিতে পুঁতে চারা তৈরি করা হয়। চারা গাছটি এক বছরের মধ্যে প্রায় ৪৫ সেমি., লম্বা ও ১ সেমি. ব্যাস হবে; তখনই চারাটি কলম করার উপুক্ত হবে। আমের জোড় কলম কিভাবে করতে হয় সেটি সম্পর্কে আজকে আমরা জানবো-

জোড় কলম
এই পদ্বতিতে একটি আমের আঁটির চারার সাথে উন্নত জাতের গাছের ডালের সংযুক্ত করে একটি নতুন চারা গাছ তৈরি করা হয়। বাংলাদেশে এ পদ্বতিতে সবচেয়ে বেশি কলমের চারা তৈরি করা হয়। সাধারণত এ কলম করা হয়। এর ফলে বাড়তি পানি পানি দিতে হবে না। কলম করার ২-৩ সপ্তাহ আগে এক বছর বয়সের একটি আমের চারা টবের মধ্যে ভালোভাবে লাগাতে হবে। তারপর নির্বাচিত আম গাছের এক বছর আগে বের হয়েছে এবং প্রায় চারা গাছের মতোই মোটা এমন একটি শাখার সাথে সংযুক্ত করতে হবে। নির্বাচিত শাখা ও চারার যে অংশে সংযুক্ত করতে হবে সে অংশের ব্যাসের প্রায় এক তৃতীয়াংশ সমমানের গভীর করে ও ৫ সেমি. লম্বা  করে কাঠসহ বাকল তুলে ফেলতে হবে। এরপর চারা গাছটিকে উপযুক্ত স্থানে রেখে কাটা অংশের সাথে নির্বাচিত গাছের কাটা অংশের জোড়া লাগিয়ে দিয়ে সুতলি বা দড়ি দিয়ে এমনভাবে বেঁধে দিতে হবে যেন কোন ফাঁক না থাকে। বৃষ্টি না হলে যতদিন জোড়া না লাগে তত দিন চারা গাছের গোড়ায় পানি দিতে হবে। এ অবস্থায় জোড়া লাগতে ৪৫-৬০ দিন সময় লাগে। কলমের জোড়া সম্পূর্ণ হলে নির্বাচিত ডালের নিচের অংশ এবং চারা গাছের উপরের অংশ কেটে দিতে হয়। তবে এ কাজটি ২-৩ বারে করা ভালো। এভাবে তৈরি করা কলম ছায়াতে রেখে পরিচর্যা করে নার্সারিতে রেখে দিতে হবে অথবা জমিতে লাগাতে হবে।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিখ্যাত ‘খিরসাপাত’ জাতের আম জিআই’ (ভৌগোলিক নির্দেশক) পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত হতে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে গেজেট জারি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নিবন্ধন পেলে সুস্বাদু জাতের এই আম ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাত আম’ নামে বাংলাদেশসহ বিশ্ব বাজারে পরিচিতি লাভ করবে।  এই আমের ...
ফলের রাজা আম।বাংলাদেশ এবং ভারত এ যে প্রজাতির আম চাষ হয় তার বৈজ্ঞানিক নাম Mangifera indica. এটি Anacardiaceae পরিবার এর সদস্য। তবে পৃথিবীতে প্রায় ৩৫ প্রজাতির আম আছে। আমের বিভিন্ন জাতের মাঝে আমরা মূলত ফজলি, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, ক্ষিরসাপাত/হীমসাগর,  আম্রপালি, মল্লিকা,আড়া ...
চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট আম ফাউন্ডেশনে উন্নত ও আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করে আম বাজারজাতকরণের লক্ষ্যে আমচাষীদের নিয়ে পরীক্ষামূলক প্রদর্শনী ও সভা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সকাল থেকে শুরু হয়ে দিনব্যাপী চলা বিভিন্ন প্রদর্শনীতে এলাকার আমচাষী ও ব্যবসায়ীরা অংশ ...
বাংলাদেশে উৎপাদিত ফল ও সবজির রপ্তানির সম্ভাবনা অনেক। তবে সম্ভাবনার তুলতায় সফলতা যে খুব যে বেশি তা বলার অপেক্ষা রাখে না। রপ্তানি সংশ্লিষ্ঠ ব্যাক্তিবর্গ অনিয়মতান্ত্রিকভাবে বিভিন্নভাবে তাদের প্রচেষ্ঠা অব্যহত রেখেছেন। কিন্তু এদের সুনির্দিষ্ট কোন কর্ম পরিকল্পনা নেই বললেই চলে। ...
দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে এবার আম সাম্রাজ্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা রফতানি পণ্যের তালিকায় উঠে আসার এক মাসের মধ্যেই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের আম ব্যবসায়ীরা খুবই আগ্রহী হয়ে উঠেছে এখানকার আম তাদের দেশে নিয়ে যাবার ব্যাপারে। যদিও ইতোপূর্বে এ বছর চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে দুই হাজার টন আম ...
অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড কাউন্টির ছোট্ট শহর বাউয়েন। ছোট এ শহরের বড় গর্ব একটা আম। আমটি নিয়ে বাউয়েন শহরের মানুষেরও গর্বের শেষ নেই। লোকে তাদের শহরকে চেনে আমের রাজধানী হিসেবে। ৩৩ ফুট লম্বা, সাত টন ওজনের বিশাল এই আমের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার লোকের অভাব হয় না। তবে দিনকয়েক আগে ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২