Smart News - шаблон joomla Создание сайтов
  • Font size:
  • Decrease
  • Reset
  • Increase

ব্যাপক ক্ষতির মুখে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ব্যবসায়ীরা

রপ্তানি যোগ্য আম উৎপাদন করেও রপ্তানি করতে না পেরে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। কৃষি অধিদপ্তরের কোয়ারেন্টাইন উইংয়ের সাথে স্থানীয় কৃষি বিভাগের সমন্বয়হীনতার কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মে করেন বাগান মালিক ও চাষিরা। অন্যদিকে জেলার ম্যাংগো ফাউন্ডেশনে নেতা আম রপ্তানি না হওয়ার পেছনে কোয়ারেন্টাইন উইংয়ের উপ-পরিচালককেই দায়ী করেন।

রপ্তানি যোগ্য আম উৎপাদনে সফল হওয়ায় ২০১৫ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে শুরু হয় আম রফতানি। সেবার মাত্র সাড়ে ৩ মেট্রিক টন আম দিয়ে রফতানি শুরু হলেও পরের বছর ১৫০টন আম রফতানি হয় জেলা থেকে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছর রফতানিকারকদের সাথে চুক্তি সাপেক্ষে উন্নত কৃষি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ৪ হাজার মেট্রিক টনেরও বেশি রফতানি যোগ্য আম উৎপাদন করে বাগান মালিকরা। কিন্তু এবছর নতুন করে কৃষি অধিদপ্তরের কোয়ারেন্টাইন উইংয়ের হস্তক্ষেপের কারণে আম রফতানি করতে পারেননি ব্যবসায়ীরা। এজন্য স্থানীয় কৃষি বিভাগের সমন্বয়হীনতারকেই দায়ী করছেন তারা।

বাগান মালিকেরা জানায়, ‘এক্সপোর্টটার ও বায়ারদের কোনো আপত্তি ছিল না। কিন্তু দুই একজনের কারণে এবার আম রফতানি হয়নি। বায়ারদের সাথে যোগাযোগ করার পরও কি কারণে বিদেশে রফতানি করতে পারলাম না সেটি আমরা বুঝতে পারছি না।’

রফতানি করতে না পেরে এসব আম বাজারে বিক্রি করে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

জেলার কৃষি কর্মকর্তা জানান, বছরের শুরুতে সাতক্ষীরা থেকে রপ্তানি হওয়া কিছু আম নিয়ে ইউরোপের বাজারে সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় কোয়ারেন্টাইন কর্তৃপক্ষ বাছাই প্রক্রিয়ায় কঠোরতা আরোপ করে

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক মোঃ মঞ্জুরুল হুদা বলেন, ‘এ আম যদি আমরা রফতানি করতাম তাহলে দেখা যেত ৫/৬ বছরের জন্য একটা স্থায়ী নিষেধাজ্ঞার মধ্যে পড়তাম। আর সেই কারণে কোয়ারেন্টাইন কর্তৃপক্ষ ৭০ ভাগ আম রফতানির অযোগ্য বলে ঘোষণা করেছে।’

এদিকে আম রপ্তানি না হওয়ার পেছনে কোয়ারেন্টাইন উইংয়ের উপ-পরিচালককেই দায়ী করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ম্যাংগো ফাউন্ডেশন সদস্য সচিব মোঃ আহসান হাবিব।

তিনি বলেন, ‘গত বছরের চেয়ে এই বছরে আমের মান অনেক ভাল ছিল। তবে এটি আগামীতে আম রফতানির ক্ষেত্রে একটি প্রতিবন্ধকতা হিসেবে কাজ করবে। সেই চাষিরা উৎসাহ হারাবে।’

জুনের পর চাঁপাইনবাবগঞ্জের ফজলি ও আশ্বিনা আম পাড়া শুরু হলেও ৩০ জুন পর্যন্ত রপ্তানির শেষ সময় নির্ধারণ জেলার আমকে ক্ষতিগ্রস্ত করার একটি অপচেষ্টা হিসেবে দেখছেন আম সংশ্লিষ্টরা।

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found
জৈষ্ঠ্য মাসের প্রথম সপ্তাহে জেলার হিমসাগর আম গেল ইউরোপে। আর এর মধ্য দিয়েই আম রপ্তানিতে কৃষি বিভাগের প্রচেষ্টা তৃতীয়বারের মতো সাফল্যের মুখ দেখলো। সোমবার রাতে রপ্তানির প্রথম চালানেই জেলার দেবহাটা উপজেলার ছয়জন চাষী ও সদর উপজেলার তিনজন চাষীর বাগানের হিমসাগর আম পাঠানো হলো ...
মধূ মাসে বাজারে উঠেছে পাকা আম। জেলা শহর থেকে ৬০ কি.মি দুরের প্রত্যন্ত ভোলাহাট উপজেলার স্থানীয় বাজারে ফরমালিন মুক্ত গাছপাকা আম এখন চড়া দামে বিক্রয় হচ্ছে। মালদহ সীমান্তবর্তী বিশাল আমবাগান ঘেরা এই উপজেলায় বেশ কিছু জায়গা ঘুরে বাজারগুলোতে শুধু গাছপাকা আম পেড়ে বিক্রয় করতে দেখা ...
আমের মৌসুম বাড়ছে আরও এক মাস  কোনো রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার না করে আম পাকা প্রায় এক মাস বিলম্বিত করার প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন এক উদ্ভিদবিজ্ঞানী আম পাকা শুরু হলে আর ধরে রাখা যায় না। তখন বাজারে আমের সরবরাহ বেড়ে যায়। যেকোনো দামেই বেচে দিতে হয়। তাতে কোনো কোনো বছর চাষির উৎপাদন ...
বাংলাদেশে উৎপাদিত ফল ও সবজির রপ্তানির সম্ভাবনা অনেক। তবে সম্ভাবনার তুলতায় সফলতা যে খুব যে বেশি তা বলার অপেক্ষা রাখে না। রপ্তানি সংশ্লিষ্ঠ ব্যাক্তিবর্গ অনিয়মতান্ত্রিকভাবে বিভিন্নভাবে তাদের প্রচেষ্ঠা অব্যহত রেখেছেন। কিন্তু এদের সুনির্দিষ্ট কোন কর্ম পরিকল্পনা নেই বললেই চলে। ...
প্রাচীনকাল থেকেই বিভিন্ন দেশের পর্যটকেরা ভারতে আসা যাওয়া করেছেন। তাদের বিবেচনায় আম দক্ষিন এশিয়ার রাজকীয় ফল। জগৎ বিখ্যাত পর্যটক ফাহিয়েন, হিউয়েন সাং, ইবনে হাষ্কল, ইবনে বতুতা, ফ্লাঁয়োসা বর্নিয়ের এরা সকলেই তাদের নিজ নিজ কর্মকান্ড ও লেখনির মাধ্যমে আমের এরুপ উচ্চ গুনাগুনের ...
নব্য জেএমবির বিভিন্ন সদস্যকে গ্রেপ্তার এবং সর্বশেষ সংগঠনের প্রধান আব্দুর রহমানের কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র সংগ্রহ করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। প্রায় ১৯টির মতো সাংগঠনিক চিঠিও উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৯টি চিঠি পাঠিয়েছেন নিহত আব্দুর রহমান ওরফে ...

MangoNews24.Com

আমাদের সাথেই থাকুন

facebook ফেসবৃক

টৃইটার

Rssআর এস এস

E-mail ইমেইল করুন

phone+৮৮০১৭৮১৩৪৩২৭২